ইউটিউব মার্কেটিং কি? কিভাবে করবেন | YouTube Marketing Bangla

আজকের ডিজিটাল বিশ্বে, ইউটিউব বিপণন সমস্ত মাধ্যমকে পিছনে ফেলেছে।ইউটিউব অনলাইন মার্কেটিং বিশ্বের ধারণা পরিবর্তন করেছে। কয়েক বছর আগে টিভিতে বিজ্ঞাপন দেওয়া পণ্যগুলিই প্রচারের অন্যতম সেরা মাধ্যম ছিল,এবং এটি খুবই বিশ্বাসযোগ্যও ছিল। কিন্তু যুগের পরিবর্তন হবার সাথে সাথে এই সময়ে ইউটিউব মার্কেটিং ব্যবসায়ের প্রচার এবং প্রসারণের অন্যতম প্রধান মাধ্যম হিসাবে বিবেচিত হয়েছে।

গুগল সার্চ ইঞ্জিন এর পরই দ্বিতীয় রয়েছে “ইউটিউব সার্চ ইঞ্জিন“, ইন্টারনেটে যেকোনো তথ্য গ্রহণ বা যেকোনো বিষয়ে শিক্ষা গ্রহণের ক্ষেত্রে বেশি পরিমাণে ব্যবহার করা হয়। 

তাই বুঝতেই পারছেন , ইউটিউবে আপলোড করা ভিডিও গুলি কতটা বেশি পরিমাণে ইন্টারনেটে দেখা হয়। 

ইউটিউব এর মাধ্যমে মার্কেটিং করা মানে, ভিডিওর মাধ্যমে অনলাইনে মার্কেটিং করাকেই বোঝায়। 

তাই, ইউটিউব মার্কেটিং কে ভিডিও মার্কেটিং বলা যেতে পারে।

এই সুযোগের সৎ ব্যবহার করে, বর্তমানে বিভিন্ন কোম্পানি, ব্যবসার মালিক , ব্যবসার সাথে জড়িত ভিডিও কনটেন্ট তৈরি করে, ইউটিউবে আপলোড করে।  

এতে, তারা তাদের বিভিন্ন প্রডাক্ট, সার্ভিস এবং নিজেদের ব্র্যান্ড গুলি, ইন্টারনেটে ভিডিওর মাধ্যমে প্রচার বা মার্কেটিং (marketing) করে ।  

ইউটিউব মার্কেটিং কি?

যেকোনো একটি কোম্পানি হোক বা ওয়েবসাইট বা ব্যবসা (business) প্রত্যেকেই তাদের কনটেন্ট, পণ্য (product), সার্ভিস বা ব্র্যান্ড (brand), ইউটিউব ভিডিও মার্কেটিং এর মাধ্যমে  লক্ষ্যবস্ত গ্রাহক এর মধ্যে প্রচার করতে পারেন।

তাই, এই অনলাইন মার্কেটিং (online marketing) এর প্রক্রিয়াটি, আধুনিক মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে সব থেকে লাভজনক হয়ে উঠেছে । 

সুতরাং,বলা যেতে পারে যে ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও আপলোড করে কোনও ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানের পণ্য বা পরিষেবা প্রচারের নামই হল ইউটিউব মার্কেটিং।

 

তবে মনে রাখতে হবে যে ভিডিও মার্কেটিং কেবল একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করে তাতে ভিডিও আপলোড করাটাকেই বলেনা। 

ভিডিওর মাধ্যমে মার্কেটিং করার জন্য আপনাকে ক্রিয়েটিভ (creative) হতে হবে। 

কারণ, সকলে সব ধরণের ভিডিও পছন্দ করেননা। 

আমি বা আপনি, এমন ভিডিও দেখতে পছন্দ করি যেগুলি আমাদের মনোরঞ্জন দেয় বা কোন ধরনের পরামর্শ, জ্ঞান বা উপদেশ দেয়।

তাই, আপনার ব্যবসা যেটাই হোক না কেন, ভিডিওর মাধ্যমে তাকে অনলাইনে মার্কেটিং করার জন্য একটি ভালো ভিডিও স্ক্রিপ্ট (video script)বা ভাল কন্টেন্ট এর ভিডিও আগেই তৈরি করে নিতে হবে। 

 

কিভাবে করবেন ইউটিউব মার্কেটিং ?

ইউটিউব মার্কেটিং কী তা হয়তো এতক্ষণে আপনারা জেনে গেছেন, তবে ইউটিউব মার্কেটিংকীভাবে করবেন সে সম্পর্কে আপনার যদি সঠিক ধারণা না থাকে তবে ইউটিউব মার্কেটিং করা সম্ভব নয়। ইউটিউব মার্কেটিংকরতে আপনাকে কতগুলি পদক্ষেপ পালন করতে হবে।

সেগুলি হলঃ-

. নিজের ইউটিউবের চ্যানেল তৈরি করুন

প্রথমেই আপনার একটি ইউটিউবের চ্যানেল তৈরি করতে হবে।

চ্যানেল তৈরি করার জন্য আপনার একটি Google account বা Gmail ID র প্রয়োজন হবে।

Gmail ID র মাধ্যমে,  ইউটিউব অ্যাকাউন্ট এ লগইন করার পর, Create channel অপসন ব্যবহার করে, নিজের একটি channel তৈরি করে নিতে হবে।

আপনার ব্যবসায়ের ধরণ অনুসারে আপনি নিজের Gmail অ্যাকাউন্ট তৈরি করে নিতে পারেন।

২. আপনার ইউটিউব চ্যানেল সেট আপ করুন (Setup Your YouTube Channel)

ইউটিউবে যে চ্যানেলটি আপনি তৈরি করলেন, সেটাতে নিজের business বা product এর ওপরে নির্ভর করে একটি নাম দিতে হবে।

মনে, রাখবেন, YouTube Channel Name এমন দিতে হবে, যেটা দেখেই লোকেরা বুঝে যেতে পারে যে, আপনি কি বিষয়ে ভিডিও গুলিতে কথা বলবেন।এরপর আপনার ব্যবসায়ের ধরণ অনুযায়ী আপনার চ্যানেল টি  কাস্টমাইজ করতে হবে। আপনি চ্যানেল আইকন এবং চ্যানেল আর্টের মাধ্যমে আপনার ব্র্যান্ড সম্পর্কে ধারণা দিতে পারেন। যাতে অন্যান্য ব্যবহারকারীরা সহজেই আপনার চ্যানেল এবং ব্র্যান্ডটি সনাক্ত করতে পারে ।

এর ফলে ,আপনার চ্যানেল অনেক আকর্ষণীয় দেখাবে।

৩.আপনার ব্যবসা সম্পর্কিত ভিডিও তৈরি করুন

আপনার ইউটিউব চ্যানেল তৈরি এবং ব্র্যান্ড প্রতিষ্ঠার পরবর্তী পদক্ষেপ ব্যবসায়ের সাথে সম্পর্কিত ভিডিও তৈরি করা। তবে, আপনি কি ভিডিও তৈরি করবেন, সেটা আপনার ওপরে।

ধরুন, আপনার একটি এপ্লিকেশন রয়েছে, যেটার মাধ্যমে online Ticket booking করা যাবে।

এই ক্ষেত্রে, আপনাকে এমন একটি ভিডিও তৈরি করতে হবে, যেখানে আপনি আপনার application টির ব্যাপারে বুঝিয়ে বলতে পারেন।

আপনার এমন ভিডিও তৈরি করতে হবে যেটা দেখে দর্শকরা  স্পষ্ট ভাবে আপনার ব্যবসা, পণ্য বা সার্ভিস এর ব্যাপারে  সম্পূর্ণটা বুঝে যেতে পারে।

ভিডিওটি এমনভাবে তৈরি করতে হবে  যাতে দর্শকরা আপনার আপলোড করা ভিডিওটি শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত আগ্রহের সাথে দেখে তারপরে পণ্য বা পরিষেবা কেনার বিষয়ে আগ্রহী হয় ।

 একটি সংক্ষিপ্ত ভিডিওতে যাতে আপনার ব্যবসা এবং পণ্য সম্পর্কে বিশদ ধারণা দেওয়া  যায় সেটি মাথায় রাখতে হবে। গবেষণায় দেখা গেছে যে সংক্ষিপ্ত ইউটিউব ভিডিও গুলি সর্বাধিক জনপ্রিয়।

৪. ভিডিও গুলি SEO র জন্য optimize করুন

আপনার আপলোড করা ভিডিও তে , Google search এবং YouTube search থেকে ফ্রীতেই organic traffic পাওয়ার প্রচুর সুযোগ থাকে।

তাই, এই ধরণের ওয়েব সার্চ ইঞ্জিন (web search engine) থেকে যতটা বেশি সম্ভব traffic ও visitors পাওয়ার চেষ্টা করবেন ।

এসইওর জন্য আপনার ভিডিওগুলিতে ,আপনাকে সঠিক শিরোনাম, বিবরণ, বিভাগ, থাম্বনেইল, ট্যাগ, কীওয়ার্ড ইত্যাদি ব্যবহার করতে হবে ফলস্বরূপ আপনি প্রাকৃতিক এবং অনন্য দর্শক পাবেন।

তবে মনে রাখবেন, search engine গুলোর থেকে প্রচুর পরিমানে organic video views পাওয়ার জন্য,“YouTube SEO” র বিষয়ে প্রচুর জ্ঞান থাকতেই হবে।

ইন্টারনেটে ভিডিও প্রচার করুন

আপনি কোনও বাণিজ্যিক পণ্য বা পরিষেবা উৎপাদন করার পরে আপনাকে প্রচারের দিকে মনোনিবেশ করতে হবে। এবং আপনার ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিওগুলি তৈরি এবং আপলোড করার পরে, আপনাকে বিপণনে আরও ফোকাস করতে হবে।

search engine ছাড়াও, আপলোড করা ভিডিও গুলি অন্যান্য অনেক জায়গায় প্রোমোট (promote) করা যায়।

যেমন, social media platforms, Facebook বা twitter এ।

এই সোশ্যাল মিডিয়া ওয়েবসাইট গুলিতে, যেকোনো বিষয়ে ইন্টারেস্ট থাকা লক্ষ লক্ষ ইন্টারনেট ব্যবহারকারীরা (user) রয়েছেন।

আপনি নিজের business বা brand এর একটি social media profile তৈরি করে, ভিডিও গুলির লিংক সেখানে অবশ্যই শেয়ার করতে পারবেন।

এর ফলে, এভাবেই আপনি আপনার ব্যবসা বা সার্ভিস গুলিকে ভিডিওর মাধ্যমে দ্রুত গতিতে অনলাইনে মার্কেটিং করতে পারেন।

ইউটিউব অ্যাডস এর ব্যবহার করুন

ইউটিউবে বিজ্ঞাপন ভিডিওর মাধ্যমে ভিউয়ার বাড়ানো এক উপায়। কম সময়ে এবং কম খরচে  নির্দিষ্ট দর্শকদের পেতে YouTube বিজ্ঞাপনগুলি ব্যবহার করতে হয় ।

সাধারণত আমরা যখন ইউটিউবে কোনও ভিডিও দেখি,তখন আমরা মাঝে মাঝে বিভিন্ন বিজ্ঞাপন দেখতে পাই।সামান্য অর্থের বিনিময়ে আপনি আপনার চ্যানেল এবং ভিডিওগুলিকে বিজ্ঞাপন আকারে প্রচার করতে পারেন। ইউটিউব বিজ্ঞাপনগুলি ব্যবহার করে আপনি খুব তাড়াতাড়ি  পছন্দসই শ্রোতা পেতে পারেন।

YouTube ads ব্যবহার করে, ভিডিও বিজ্ঞাপনের সাহায্যে সোজা ভাবে targeted customers পাওয়ার সুযোগ এখানে প্রচুর।

এবং, YouTube marketing এর ক্ষেত্রে এই ধরনের প্রক্রিয়া অনেকটাই জরুরি ও লাভজনক।

YouTube marketing করে কি লাভ হবে

ইউটিউব মার্কেটিং কি এবং কিভাবে ইউটিউব ভিডিও মার্কেটিং করবেন, এই বিষয়ে পুরোটাই আপনাদের বুঝিয়ে বললাম।

YouTube হলো বিশ্বের সবচেয়ে  বড় এবং অনেক জনপ্রিয় একটি video sharing platform.

এবং, গুগলের পরেই দ্বিতীয় সব থেকে বড় search engine platform বলা হয় YouTube কে।

তাই, এখানে যেকোনো বিষয়ে ইন্টারেস্ট রাখা, যেকোনো বয়সের এবং বিভিন্ন দেশ বিদেশ থেকে ইন্টারনেট ইউসাররা, ভিডিও দেখার উদ্দেশ্যে আসেন।

এতে, আপনার business অথবা brand গুলিকে, YouTube channel ও video র মাধ্যমে মার্কেটিং ও প্রচার করে, খুব কম সময়ের মধ্যে প্রচুর  গ্রাহক পেয়ে যেতে পারেন।

তাছাড়া, YouTube channel এর মাধ্যমে নিজের business, product, service, app বা website গুলির সাথে জড়িত আপডেট গুলি, সময়ে সময়ে ভিডিও হিসেবে পাবলিশ করে, নিজের viewers দের সাথে সংযুক্ত থাকতে পারবেন।

এবং, এটাও একটি মার্কেটিং এর এক অনেক গুরুত্বপূর্ণ উপায়।

চলুন আমরা ইউটিউব মার্কেটিং এর লাভ এবং সুবিধা গুলোর বিষয়ে জেনে নেই।

7 Benefits of YouTube marketing

·         প্রতিটি সময়ে নতুন নতুন গ্রাহক (customers) বা viewers পাওয়ার সুযোগ রয়েছে।

·         YouTube এ আপলোড করা ভিডিও গুলিতে Google search থেকেও organic users হিসাবে দর্শক রা দেখতে আসবে।

·         আপনি আন্তর্জাতিকভাবে (internationally) নিজের business বা brand এর মার্কেটিং করতে পারবেন।

·         YouTube Ads , Google Ads এর মাধ্যমে, লক্ষ্যবস্তু শ্রোতা (targeted audience) পাবেন।

·         ভিডিওর মাধ্যমে মার্কেটিং করাটা এই সময় অধিক লাভজনক। কারণ, ইন্টারনেটে এখনের সময়ে video content অধিক জনপ্রিয়।

·         YouTube এর মাধ্যমে marketing, খুব সহজে সহজে নিজেই করতে পারবেন।

·         নিজের চ্যানেলে “স্থায়ী subscribers” অর্জন করতে পারলে, ভবিষ্যতেও তারা আপনার চ্যানেল এর সাথে যুক্ত হয়ে থাকবে। এভাবে, আপনার একটি ভালো এবং বড় audience base তৈরি হবে।

এগুলো ছাড়াও আরো অনেক লাভ রয়েছে ডিজিটাল মার্কেটিং এর প্রক্রিয়ার।

তবে, আপনি নিজে এই অনলাইন ভিডিও মার্কেটিং এর পদ্ধতিটি ব্যবহার করার পর, এর প্রত্যেকটি লাভ ও সুবিধা সম্পর্কে বুঝতে পারবেন।

আমাদের শেষ কথা

আমি আজ একটি উক্তি বলতে চাই যে “জ্ঞানী লোকেরা দেখলে শিখায় এবং বোকা হোঁচট খায়।”

 আজকালকার  ডিজিটাল বিশ্বে অনলাইন বিপণনের প্রয়োজন ক্রমাগত বাড়ছে। এবং ইউটিউব বিপণন এগিয়ে চলেছে। আমরা ইউটিউব মার্কেটিং করতে চাই না তবে অন্যরা থামায় না। বিপরীতে, ইউটিউব বিপণনের মাধ্যমে দিন দিন বিভিন্ন ব্যবসা প্রসারিত হচ্ছে এবং ইউটিউব বিপণনের চাহিদা ক্রমাগত বাড়ছে।

সুতরাং, দেরি না করেই ইউটিউব বিপণনের মাধ্যমে ডিজিটাল বিশ্বে আপনার যাত্রা শুরু করুন এবং নিজেকে স্বাবলম্বী হতে সাহায্য করুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top